ঢাকা, সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১

ব্রিটিশ সংসদে মহানবী (সা.)-এর সম্মান রক্ষায় আইন প্রণয়নের দাবি


প্রকাশ: ১৩ জুলাই, ২০২১ ০৬:০৩ পূর্বাহ্ন


ব্রিটিশ সংসদে মহানবী (সা.)-এর সম্মান রক্ষায় আইন প্রণয়নের দাবি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- পার্লামেন্টে ইসলাম ও মহানবী মুহাম্মদ (সা.)-এর সম্মানরক্ষায় আইন প্রণয়নের দাবি জানিয়েছেন ব্রিটিশ সংসদ সদস্য নাজ শাহ।ইউরোপে যখন ক্রমেই ইসলামবিদ্বেষ বাড়ছে তখন একজন ব্রিটিশ সংসদ সদস্যের এই দাবিতে গুরুত্বপূর্ণ বলেই মনে করছে ইউরোপীয় মুসলিম কমিউনিটিগুলো। লেবার পার্টির এমপি নাজ শাহ সংসদে মুসলিমদের অনুভূতিতে আঘাত করে ইসলাম ধর্মের অবমাননা ও কটূক্তি বন্ধে আইন করার আহ্বান জানান।গত ৬ জুলাই হাউস অব কমন্সে দেশটির স্মরণীয় ব্যক্তিদের স্ট্যাচু বা ভাস্কর্য ভাঙার অপরাধবিষয়ক প্রস্তাবিত আইনের ওপর আলোচনা হয়। তাতে বলা হয়, ভাস্কর্যে হামলা বা ভাঙার ফলে মানুষের আনুভূতিতে মারাত্মক আঘাত করে। তাই এই অপরাধে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে ১০ বছর কারাদণ্ডের প্রস্তাব করা হলো।ওই প্রস্তাবের ওপর আলোচনার সময় নাজ শাহ বলেন, ‘কেন সাধারণ পাথর বা লোহায় আঘাতের তুলনায় একই বস্তু দিয়ে নির্মিত মানুষের ভাস্কর্যে আঘাতে উল্লেখযোগ্য শাস্তির প্রস্তাব করা হয়েছে? অথচ ধাতুগত দিক থেকে তারা অনুভূতিশূন্য এবং একই বস্তুর তৈরি। কেন একটি ভাস্কর্যকে আঘাত সাধারণ বস্তুতে আঘাতের মতো নয়?’যুক্তরাজ্য ও বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সব মুসলিমও একই ব্যক্তির প্রতি শ্রদ্ধাবোধ লালন করে উল্লেখ করে নাজ শাহ বলেন, ‘একজন মুসলিম হিসেবে আমি ও বিশ্বের সব মুসলিম প্রতিদিন প্রতি মুহূর্তে সবচেয়ে বেশি মহানবী মুহাম্মদ (সা.)-কে সম্মান করে ও ভালোবাসে। যখন কোনো ধর্মান্ধ ও বর্ণবাদী আমাদের নবী মুহাম্মদ (সা.)-কে অবমাননা করে বা গালি দেয়, যেমন চার্চিলের ভাস্কর্যকে করেছে, তখন আমাদের অনুভূতিতে তীব্র আঘাত করে। কেননা বিশ্বের দুই শ কোটি মানুষের কাছে তিনি একজন নেতা, যাকে আমরা প্রতিনিয়ত স্মরণ করি। আমরা জীবন দিয়ে তাঁকে সম্মান জানাই।’যুক্তরাজ্যের ঐতিহাসিক স্মরণীয় ব্যক্তিদের ভাস্কর্য রক্ষায় যেমন আইনের প্রস্তাব করা হয়েছে, তেমনি অন্যান্য ধর্মীয় জনগোষ্ঠীর সম্মানিত ব্যক্তিবর্গ ও তাদের ধর্মীয় অনুভূতির প্রতি সম্মান দেখিয়েও আইন করার দাবি জানিয়েছেন এই ব্রিটিশ এমপি।নাসিম নাজ শাহ পাকিস্তান বংশোদ্ভূত একজন ব্রিটিশ এমপি। ২০১৫ সালে তিনি রিসপেক্ট পার্টির মনোনীত প্রার্থী হিসেবে ব্র্যাডফোর্ড ওয়েস্ট থেকে জর্জ গ্যালোর এমপি নির্বাচিত হন। এর আগে তিনি ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।


   আরও সংবাদ